Apan Desh | আপন দেশ

তিনদফা দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে নাদিয়ার সহপাঠীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৪:২০, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

আপডেট: ১৪:৩৯, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

তিনদফা দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে নাদিয়ার সহপাঠীরা

ছবি: আপন দেশ ডটকম

রাজধানীর প্রগতি স্মরণি এলাকায় বাস চাপায় নাদিয়া সুলতানা (২১) নামে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় বিমানবন্দর সড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে সড়কে নেমে আন্দোলন শুরু করেন তারা। এসময় বিমানবন্দর সড়কের এক লেনে যান চালাচল করতে দেখা গেছে।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, সড়কে প্রায়ই ঘটছে এমন ঘটনা। সড়ক দুর্ঘটনা ঠেকাতে তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ চান। সেই সঙ্গে সহপাঠী নিহত হওয়ার ঘটনায় দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার চান তারা।

সড়ক অবরোধ করে আন্দোলনকারীরা তিনটি দাবির কথা জানিয়েছে। সেগুলো হলো- আগামীকাল ২৩ জানুয়ারি বেলা ১১টার মধ্যে ভিক্টর ক্লাসিক বাসের রুট পারমিট বাতিল করতে হবে, নিহত ছাত্রীর পরিবারকে অতিদ্রুত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, কাওলা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় একটি স্থায়ী বাস স্টপেজ নির্মাণ করাসহ সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

এদিকে, নাদিয়ার নিহত হওয়ার ঘটনায় ঘাতক বাসটির চালক ও হেলপারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৮টায় রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে ডিএমপির গুলশান জোনের ডিসি মো. আবদুল আহাদ বলেন, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

এক বন্ধুর সঙ্গে মোটরসাইকেলে প্রগতি সরণি এলাকায় গিয়েছিলেন নাদিয়া। তাদের মোটরসাইকেলটিকে ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের একটি বাস চাপা দেয়। এতে নাদিয়া মোটরসাইকেল থেকে রাস্তায় পড়ে বাসের সামনের চাকায় পিষ্ট হন।

নাদিয়া আক্তার নর্দান ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাবার নাম জাহাঙ্গীর মৃধা। বাড়ি পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালি সদর ইউনিয়নের পূর্বনেতা গ্রামে। তাঁরা নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় থাকেন। রাজধানীর আশকোনা এলাকায় থেকে পড়াশোনা করছিলেন নাদিয়া। দুর্ঘটনায় নাদিয়ার বন্ধু মোটরসাইকেলের চালকের আসনে থাকা মেহেদী হাসান আহত হয়েছেন। তিনি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য একটি বিভাগের ছাত্র।

আপন দেশ ডটকম/ সবুজ

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়