Apan Desh | আপন দেশ

এক স্কুলের এক ছাত্র শিক্ষকও একজন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯:১৮, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

আপডেট: ১৯:২০, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

এক স্কুলের এক ছাত্র শিক্ষকও একজন

ছবি: সংগৃহীত

ছাত্র সংখ্যা এক। গোটা স্কুলে শিক্ষকও একজনই। এমন পরিস্থিতেও দিব্যি চলছে স্কুল। হচ্ছে পড়াশোনা, এমনকি, পরীক্ষাও। ভারতের মহারাষ্ট্রের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এভাবেই চলছে পড়াশোনা।

মহারাষ্ট্রের ওয়াসিম জেলার একটি ছোট্ট গ্রাম গণেশপুর। আয়তনে তো বটেই, জনসংখ্যার বিচারেও ওই এলাকার মধ্যে সবচেয়ে ছোট গ্রাম। গোটা গ্রামে মাত্র ১৫০টি ঘর। প্রত্যেকটি পরিবারই অর্থনৈতিক দিক থেকে পিছিয়ে। গ্রামের এক প্রান্তেই রয়েছে জেলা পরিষদের প্রাথমিক বিদ্যালয়। গ্রামে সাক্ষরতার হারও অনেক কম। গ্রামে একটি স্কুল থাকা সত্ত্বেও ছাত্র বলতে শুধু ৮ বছরের কার্তিক সেগোরকে। কার্তিক তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র। শুধু মাত্র তার জন্যেই প্রতিদিন খোলা হয় শ্রেণিকক্ষের দরজা। সকালে জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে শুরু হয় স্কুল। তার পর আর পাঁচটা স্কুলের মতোই শুরু হয় ক্লাস।

কার্তিককে পড়ানোর জন্য রয়েছেন কিশোর মানকর নামে একজন শিক্ষক। অঙ্ক থেকে পরিবেশবিদ্যা- কার্তিককে প্রতিটি বিষয় তিনিই দেখিয়ে দেন। কিশোর প্রতিদিন ১২ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে স্কুলে আসেন। শুধুমাত্র কার্তিককে পড়াবেন বলে। বিগত দু'বছর ধরে এই রুটিন মেনে আসছেন তিনি। কিশোর জানান, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ার মতো গ্রামে আর এমন কেউ নেই। কার্তিকই একমাত্র। তাই তাকেই পড়ান তিনি। বছরে দু'বার পরীক্ষাও হয়। তবে একজন ছাত্র হলেও সরকারি সব রকম সুযোগ-সুবিধা পায় কার্তিক। এমনকি, মিড-ডে মিলও রান্না হয় কার্তিকের জন্য।

আপন দেশ ডটকম/ সবুজ/ সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়