Apan Desh | আপন দেশ

মাইকে অতিষ্ঠ ইবি শিক্ষার্থীরা

ইবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১০:৫৩, ৬ ডিসেম্বর ২০২৩

মাইকে অতিষ্ঠ ইবি শিক্ষার্থীরা

ফাইল ছবি

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের অবকাঠামোগত ব্যাপক উন্নয়নে চললেও পাল্লা দিয়ে কমছে মানসিক উন্নয়ন। একদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি কার্যদিবসেই চলে ইনকোর্স বা সেমিস্টার পরীক্ষা, অন্যদিকে সম্প্রতি প্রতিদিনই প্রায় গভীর রাত পর্যন্ত চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে ধুম গানবাজনা। এতে ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষা-কার্যক্রম। মধ্যরাতে মাইকের শব্দে রীতিমতো অতিষ্ঠ শিক্ষার্থীরা। 

আবাসিক হলগুলোই উচ্চসুরে গান বাজানো বন্ধ প্রসঙ্গে অভিযোগ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেদের হলগুলোতে প্রায়ই রাতে উচ্চ শব্দে গান বাজানো হয়, যেটি কয়েকবার নিষেধ করার পরেও বন্ধ হয়নি। প্রতিনিয়ত গভীর রাত পর্যন্ত গান তথা উচ্চ শব্দে মাইক বাজানোর ফলে শিক্ষার্থীরা তাদের পড়াশোনায় মনযোগী হতে পারছেন না। 

সূত্রটি জানান, প্রতিনিয়ত উচ্চস্বরে গান বাজানোর ফলে পড়ালেখার পরিবেশ বিঘ্ন হচ্ছে। যার ফলে শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এ বিষয়ে হল কর্তৃপক্ষও জানালেও কোন সুরহা হয়নি। প্রক্টরের কাছে তারা এই দুর্ভোগ লাঘবের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি যুক্ত করা হয় অভিযোগপত্রে।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে মো. মুজাহিদুল ইসলাম (১ নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ইবি ছাত্রলীগ), সোহাগ শেখ (সাংগঠনিক সম্পাদক, ইবি ছাত্রলীগ), মো. আল-আমিন হোসেন (ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগ), মো. সাজ্জাদ হোসেন (পরিসংখ্যান বিভাগ), মারুফুল ইসলাম (বাংলা বিভাগ) ও মিজানুর রহমান মিজান (আরবি বিভাগ) এই অভিযোগপত্রে সংহতি জানান। 

বিশ্ববিদ্যালয় পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে লক্ষ করছি প্রতিদিনই রাত হলেই উচ্চ শব্দে মাইক বাজানো হয়। আজ আমার পরীক্ষা ছিল, গত সারারাত কিছু করতে পারিনি। এভাবে গভীর রাত পর্যন্ত মাইকের শব্দে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। বিষয়টি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।' 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদাৎ হোসেন আজাদ বলেন, ‘আমরা শিক্ষার্থীদের অভিযোগ পাওয়া মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে রেজিস্ট্রার বরাবর নোট পাঠিয়ে দিয়েছি। বিষয়টি নিয়ে উপাচার্য কার্যালয়ে মিটিং করা হবে। ভোগান্তির ব্যাপারে কড়াকড়ি সিদ্ধান্ত আরোপ করা হবে। শিক্ষার্থীরা ভোগান্তি ও অতিষ্ঠ হয় এমন কোন কাজ থেকে বিরত থাকতে মিটিংয়ে নির্দেশ দেয়া হবে।'

আপন দেশ/এমআর

মন্তব্য করুন # খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, আপন দেশ ডটকম- এর দায়ভার নেবে না।

শেয়ার করুনঃ

জনপ্রিয়